মানুষ ও অন্যান্য- একগুচ্ছ কবিতা: মোহাম্মদ নূরুল হক

শাহবাগে-শাহবাগে

মেঘেরা চলেছে উত্তরে দক্ষিণে

স্বপ্নেরা পোড়ে রোদের ফুলকি লেগে

এ শহর জানে লাল রাত্রির মানে

পথে-পথে ফুটপাতে কারা থাকে জেগে।

এই সব দেখে অতীতেরা মনে জাগে

কত-শত স্মৃতি শাহবাগে-শাহবাগে।

 

আমার বয়স বাড়ে না অনেক দিন

চিরকাল আমি জেনো আঠারো-উনিশে

রাজপথে ছুটি, মিছিলে দেই স্লোগান

যাকে দেখি আলাভোলা, ঋষি মুণি সে?

যারা ক্ষেপে, তারা ক্ষেপে রাগে-অনুরাগে?

কত-শত স্মৃতি শাহবাগে-শাহবাগে।

 

আরও পড়ুন- নকিব মুকশির কবিতা

 

মানুষ

মানুষ! কত ভাবেই না দূরে সরে যায়

এভাবেও যায়, ওভাবেও যায়।

 

মানুষ! এভাবেও কাছে আসে, ওভাবেও আসে!

যেমন—‘কার’ ও ‘প্রত্যয়ে’রবি ভেদ ভুলে

‘ও’ বসে কার হয়ে বর্ণের পাশে!

এভাবেও মানুষ মানুষের পাশে থাকে।

 

মানুষ! দূরে চলে যায়, এভাবেও যায়

যেমন—মেঘের হৃদয় চিরে পৃথিবীতে নেমে আসে

লক্ষ্যচ্যুত উল্কা পিণ্ড—প্রেমের বিদ্যুৎ!

 

আহা! মানুষের মানচিত্রে মানুষই রহস্য কেবল!

 

নিরীহ প্রশ্ন

আকাশ যত থাকুক মেঘের পরে

হাওয়া যতই কাঁপুক তারার ভিড়ে

মনের একটি গোপন কথা তবু

বলা তো হয়, হয়তো বা খুব ধীরে।

 

বাতাস কাঁপে তোমার কালোতিলে

হঠাৎ যদি হৃদয় কেঁপে ওঠে

কার চোখে আজ চোখ হারালে বলো

তোমার বুকে গোলাপ কুঁড়ি ফোটে

 

দুপুর রাতে ফণা তোলা চুল

দেখায় কেন উতল নদীর ঢেউ

আমার বুকে কেন কাঁপন তোলো

আমি কি আর তেমন অচিন কেউ?

 

ফলো করুন- দিব্যপাঠ সাহিত্য পত্রিকা