মুহম্মদ ইমদাদ এর কবিতাগুচ্ছ

নাম

নাম একটা কারাগার; বন্দী হয়ে আছি!

সকালে ঘুম ভেঙে গেলে

ঐ নির্দিষ্ট নামের সাথে নিজেরে মেলাতে পারি না

মনে হয়, আমি : অন্ধ ভিক্ষুক,

ছোট মেয়েটি হাত ধরে নিয়ে যায় মানুষে, নত

অথবা দুর্ঘটনায় পতিত বিমানের চালক, মৃত

 

কখনো কখনো মানুষই থাকি না

হয়ে যাই শহরের সবচেয়ে একা ছাতিমগাছ

অথবা ছাতিমের তলের গোরস্থান,

শত শত কবর বুকে নিয়ে, চুপ

 

কোনো কোনোদিন অবশ্য কিছুই থাকি না

না নদী, না পশু, না মানুষ, না গাছ

নামহীন সম্পূর্ণ অচেনা অথর্ব … লাশ।

 

আরও পড়ুন- জহুর কবিরের কবিতা

 

লাল রাত

একজন মহিলার জীবন বিপন্ন করে

একদিন আমিও খুব জন্মেছিলাম

এই ঘোর মহাবিশ্বের ঘরে!

.

জন্মের আগে অমর ছিলাম

জন্ম নিয়া দেখি পৃথিবী একটা গোরস্থান

উড়ছে লাল খয়েরি বিভিন্ন রঙের মৃত্যু

বিভিন্ন প্রকার অস্ত্র, অসুখ

 

জীবন,

যেকোনো রঙের একটা মৃত্যুকে বেছে নেওয়ার সুযোগ

ছাড়া কিছু নয়

মনে হয়।

নিজের মরণ বেছে নিতেই বাঁচতে থাকি

গর্দানে গিলোটিন নিয়ে হাঁটি

পানির প্রবাহের পাশে; আকাশের নিচে

কোথাও জীবন দেখি না

আলো নাই

 

একদিন একটা পাখি

‘প্রেম তোমার পুত্র।’ বলে উড়ে যাওয়ামাত্র

রাত আসে। লাল রাত।

আমি ঘুমিয়ে পড়ি।

 

 

আমি

আগুন চিরদিন সৎ।

আগুনে পড়ে গেলে সে আপনাকে পোড়াবেই।

কারণ পোড়ানোই তার ধর্ম।

 

পানি চিরদিন সৎ।

পানিতে পড়ে গেলে সে আপনাকে ভেজাবেই।

কারণ ভেজানোই তার ধর্ম।

 

মৃত্যু চিরদিন সৎ।

সে আপনাকে কখনো ছেড়ে যাবে না।

কারণ আপনাকে কবরে পৌঁছানোই তার ধর্ম।

 

কিন্তু আপনি নিজে যদি আগুন হন তাহলে

অতটা সততা আশা করা যায় না।

অন্তত নিজেকে পোড়াবেন না।

 

আপনি নিজে যদি পানি হন তাহলে

অতটা সততা আশা করা যায় না।

অন্তত নিজেকে ভেজাবেন না।

 

আপনি নিজে যদি মৃত্যু হন তাহলে

অতটা সততা আশা করা যায় না।

নিজেকে ছেড়ে যেতেই চাইবেন।

 

ফলো করুন- দিব্যপাঠ সাহিত্য পত্রিকা