শাদমান শরীফ এর গুচ্ছ কবিতা

 ক্লান্ত বিছানায় রাখো পিঠ

পথের ধুলো আমার পায়ে শেকল পরিয়ে দেয়

যেন অযাচিত আর্তনাদে ক্রোধে ফেটে যাচ্ছে তার যিশুজীবন

হাতের কলম বিশ্বাস করে না আমাকে

অল্প অল্প করে জীবনের ইতি ঘটছে ব্যর্থতার চাকায়।

 

কে জানত পুরনো স্মৃতির পাতা ইতিহাস হবে

শতবর্ষী বটমূলে জড়ানো ছায়ার রঙ কালো, আর

শূন্য ছায়ায় নিরর্থক প্রশ্ন আমাকে বারবার অভিযোগ করে

 

কামনার জমিনে ধর্ষণের দুর্গন্ধ

জারজ বীর্যে ফসলের আরাধ্য অভিসারে

মেনে নিয়েছি ভবিষ্যৎ

 

তোমার স্তনে মুখ রেখে চুষে নিই বাঁচার আস্বাদ

তুমি ক্লান্ত বিছানায় পিঠ রাখো আরেকবার।

 

 

 

 ক্লান্তি ও নিথরতা

কালো পাথরের নিচে পড়ে থাকা বিষন্ন এক মরুভূমি

অন্ধকারে আলো খুঁজে ফেরে প্রকৃতির খোলা বাতাস

সবুজ প্রান্তরে শিশিরের গণমিছিল আর শত্রæর জমকালো

গোলাবারুদ। সাগরের উত্তাল ঢেউয়ে জাহাজের ছুটোছুটি

ক্লান্ত নাবিকের দীর্ঘশ্বাস।

 

আকাশ ভীষণ কালো রাজপথের কোলাহলে

হারিয়েছে পথ, চারদিকে ছুটোছুটি, জনতার হাহাকার।

নিস্তব্ধতায় জমে থাকা নিথর পাথর মাথা গুঁজে ঘুমিয়েছে ভয়ে ভয়ে ।

 

 

বেওয়ারিশ

একটি লাশের খোঁজে দিব্যি অপেক্ষায়

হারিয়ে যাচ্ছি বেদনার অতল গহŸরে

মৃতবৃক্ষে বাসা বাঁধে না পাখিরা

অথচ প্রতিদিন জলপিপি বাসা বাঁধে আমার লীনপ্রায় দেহে।

 

সমুদ্রের ভরপেটে হাঙ্গরের ভোজের টেবিলে

ভেসে আসে আমার নগ্নদেহ

অথচ উড়ন্ত শকুনও এখন লাশের ছাড়পত্রের দাবিদার।

 

নাবিকের সাইরেনে সমুদ্রে জেগে ওঠে মৃতদের চর, অবশেষে

আমার পরিচয়- নামহীন, গোত্রহীন বেওয়ারিশ মনুষ্য কবর।

 

আরও পড়ুন- নিঝুম খানের কবিতা